এসইও কি কত প্রকার? এসইও কিভাবে করতে হয়

এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন জিনিষ টা আসলে কি? আমি জানি নতুন অনেকেই রয়েছেন তারা এসইও মানে জিনিষ টা অনেক কঠিন কিছু, বা search engine optimization সম্পর্কে ঠিক ভাবে অবগত নন।

এবং একই সাথে এসইও মানে অনেক জটিল বা কঠিন কিছু এমনও অনেকে মনে করেন। তবে এ কথা যে একদম ফেলে দেওয়ার মত টা কিন্তু নয়, এটা আপনাকে শুরুতেই জানিয়ে রাখি।

আবার এমনও নয় যে এসইও একটা দুঃসাধ্য বিষয়, যা আপনি কোন ভাবেই শিখে নিতে পারবেন না।

এসইও কি কত প্রকার

এসইও অর্থাৎ search engine optimization জিনিষ টা খুব কঠিন বা সহজের মাঝামাঝি একটা যায়গায় অবস্থিত।

আর সত্যি কথা বলতে এটাই, যদি এসইও জিনিষ টা ঠিক ভাবে নিজের আয়ত্তে করে নেওয়া যেতে পারে, তবে মোটামুটি ভাবে খুব সহজেই একটি ওয়েবসাইট rank করিয়ে নেওয়া সম্ভব।

তবে এখন প্রশ্ন হচ্ছে, যেহেতু আমি শুরুতেই বলেছি এসইও সহজ ও কঠিন কিছু একটার মাঝে অবস্থিত বিষয়।

তবে এই SEO জিনিষ টা কিভাবে নিজের করে নেওয়া যেতে পারে। ওয়েল এটা তো সম্পূর্ণ আর্টিকেলের Intro ছিল।

সম্পূর্ণ আর্টিকেল মনোযোগ সহকারে পড়ে ফেলুন, আশা করি এসইও কি what is seo in bengali তা সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন।

এসইও কি what is seo in bangla?

এসইও এর পূর্ণরূপ হচ্ছে “সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন” আরও সহজ ভাবে বললে আমরা যখন গুগল অথবা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে গিয়ে কিছু লিখে প্রশ্ন করি। তখন সার্চ ইঞ্জিন গুলো আমাদের করা প্রশ্নের উপর ভিত্তি করে আমাদের কিছু রেজাল্ট দেখায়।

এবং আমরা উক্ত সার্চ রেজাল্ট দেখানো ওয়েবসাইট বা ভিডিও কনটেন্ট থেকে করা প্রস্নের সঠিক উত্তর খুঁজে পাই।

তবে এটা আসলে হয় কিভাবে? কিভাবে আমরা গুগল অথবা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে গিয়ে কিছু সার্চ করতে ইন্টারনেটে অবস্থিত যত ওয়েবপেজ বা কনটেন্ট রয়েছে তা খুব সহজে খুঁজে আমাদের সামনে নিয়ে আসে।

উত্তর এসইও, বা সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন করে।

সহজ ভাবে বললে গুগল অথবা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে নিজের ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল সার্চ রেজাল্টের প্রথম পৃষ্ঠায় আনার বা দেখানোর প্রক্রিয়া বা মাধ্যম কে (SEO) এসইও “সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন” বলে।

আশা করি, এসইও কি তা ঠিক ভাবে বুজতে পেরেছেন।

এসইও কত প্রকার type of seo in bangla?

সাধারনত এসইও (SEO) সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন অনেকেই অনেক প্রকার নাম দিয়ে থাকেন। যেমন, অনেকে মনে করেন এসইও দু প্রকার যথা অনপেজ এসইও, এবং অফপেজ এসইও। আবার অনেকে বলে থাকে টেকনিক্যাল এসইও, লোকাল এসইও,মোবাইল এসইও, জেনারেল এসইও, ব্লগিং এসইও, অ্যাফিলিয়েট এসইও ইত্যাদি।

তবে যদি প্রশ্ন করা হয় এসইও আসলেই কত প্রকার বা Type of seo কি? তবে তখন উত্তর হতে এসইও আসলে তিন প্রকার যথা।

  • White hat SEO
  • Black hat SEO
  • Grey hat SEO

তবে চলুন এখন এই তিন প্রকার এসইও নিয়ে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

White hat এসইও কি?

White hat এসইও বলতে বুঝায় গুগল সহ অন্যান্য যে সার্চ ইঞ্জিন গুলো রয়েছে উক্ত সার্চ ইঞ্জিন গুলোর যে নিতিমালা বা নির্দেশনা রয়েছে তা সঠিক ভাবে অনুসরন করে এসইও (SEO) করা।

সব সময়ের জন্য মনে রাখবেন White hat এসইও সব সময় Ranking এর জন্য ভাল। যদি আপনি সঠিক ভাবে এই পদ্ধতি অনুসরন করতে পারেন তবে অনেক দ্রততার সাথে সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে নিজের ওয়েবসাইট বা ব্লগ Rank করিয়ে নিতে পারবেন।

ও সার্চ ইঞ্জিন থেকে নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইটের জন্য ট্রাফিক বা ভিজিটর পেতে পারবেন।

তবে জেনে রাখুন এই White hat এসইও আবার তিন প্রকার যথা।

  • অনপেজ এসইও
  • অফপেজ এসইও
  • টেকনিক্যাল এসইও

Black hat এসইও কি?

Black hat এসইও (SEO) বলতে সহজ ভাষায় যা বুঝায় তা হচ্ছে, গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোর যে নিতিমালা বা নির্দেশনা রয়েছে তা অনুসরন না করে অন্য উপায়ে যেমন directory backlink, paid backlink generate অথবা link exchange করে ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল সার্চ ইঞ্জিনে rank করিয়ে নেওয়ার মাধ্যম কে বুঝায়।

তবে জেনে রাখুন, এই প্রক্রিয়া অর্থাৎ Black hat SEO অনুসরন করে কোন ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল rank করিয়ে নিলে।

তা খুব অল্পদিনের মাঝেই ধরা পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। এবং সার্চ ইঞ্জিন থেকে আপনার ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল ব্যান পর্যন্ত করে দিতে পারে।

অর্থাৎ আরও সহজ করে বললে, Black hat করে rank করতে চাইলে সার্চ ইঞ্জিন গুলো যে ওয়েবসাইট বা আর্টিকেলে Black hat এসইও করা হয়েছে উক্ত ওয়েবসাইট কে পানিশমেন্ট দিয়ে থাকে।

কিভাবে, উক্ত ওয়েবসাইটের সকল আর্টিকেল বা সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট rank না করিয়ে।

তাই জন্য মনে রাখবেন Black hat এসইও কখনই ranking পাওয়ার সেরা মাধ্যম নয়। বর্তমান সময়ে গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোর প্রযুক্তি অনেক উন্নত। এই সার্চ ইঞ্জিন গুলো কিছু সময় পরেই খুব সহজে বুঝে নিতে পারবে যদি আপনি Black hat এসইও অনুসরন করে থাকেন।

এবং যখনই সার্চ ইঞ্জিন গুলো এই সম্পর্কে বুজতে পারবে, তখন আপনার ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল rank বাতিল করে দিবে।

এবং এটাও জেনে রাখুন, যদি কোন ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল সার্চ ইঞ্জিন থেকে rank বাতিল করে থাকে। তবে উক্ত ওয়েবসাইট বা আর্টিকেল পুনরায় rank করিয়ে নেওয়া একটা অসম্ভব কাজ হতে পারে।

Grey hat এসইও কি?

চলুন Grey hat এসইও কি তা সম্পর্কে একটু সহজ ভাবে জানার চেষ্টা করি। মনে করুণ আপনি গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোর যে নিতিমালা বা নির্দেশনা রয়েছে তা অনেকাংশে অনুসরণ করে এসইও করেছেন।

একই সাথে কিছুটা Black hat এসইও এর সহয়তা নিয়েছেন একটি অয়েবপেজ বা আর্টিকেলের এসইও সম্পূর্ণ করতে। এই টোটাল জিনিষ টাকেই Grey hat এসইও বলে।

আরও সহজ ভাবে বললে, White hat এসইও করবার পাশাপাশি যখন কিছুটা করে Black hat এসইও করা হয় এই সম্পূর্ণ এসইও করবার পদ্ধতি বা প্রক্রিয়াকেই Grey hat এসইও বলে।

কেন এসইও শিখবেন?

উত্তর টা অতান্ত সহজ, বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট ব্যাবহার করে অনেকেই অনেক প্রকার ই কমার্স ব্যবসা থেকে শুরু করে ছোটো খাটো লোকাল ব্যবসা করতে আগ্রহি হয়ে থাকেন।

আবার অনেকে ব্লগিং করে নিজের জ্ঞান সবার সাথে শেয়ার করতে চান, আবার অনেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বা ডিজিটাল মার্কেটিং এর মত জিনিষ পত্র করতে চান।

তবে সহজ ভাবে জেনে রাখুন, আপনি উক্ত বিষয় গুলোর মাঝে জেটাই করতে আগ্রহি হয়ে থাকুন তার জন্য অবশ্যই আপনার বেসিক (SEO) সার্চ ইঞ্জিন অপ্টীমাইজেশন সম্পর্কে জানতে হবে।

তবে আশা করি, এতক্ষণে বুজতে পেরেছেন কেন এসইও শিখবেন বা এসইও শেখে রাখা জরুরি।

কিভাবে এসইও শিখবেন?

সহজ কথায় কিভাবে এসইও শিখবেন এই প্রস্নের সঠিক কোন উত্তর হয় না। এটা আসলে নির্ভর করে কে কিভাবে এসইও জিনিষ টা বুঝার চেষ্টা করবে ও কততুকু বুজতে সক্ষম হচ্ছে তার উপর।

এসইও জিনিষ টা কোন জাদু নয়, যা আপনাকে বুঝিয়ে বলে দেওয়া মাত্রই আপনি একজন এসইও এক্সপার্ট হয়ে উঠবেন।

জেনে রাখুন এসইও জিনিষ টা সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করে অভিজ্ঞতার উপর। আপনি সাধারণ ভাবে এসইও করতে করতে যত বেশি অভিজ্ঞ হয়ে উঠতে পারবেন তত ভাল করেই এসইও শিখে নিতে পারবেন।

কেননা জেনে রাখুন, এসইও পরিবর্তনশীল আজ যে পদ্ধতি অনুসরন করে এসইও করছেন হতে পারে তা পরবর্তীতে একই রকম থাকবে না।

ফলে যদি এসিও জিনিষ টা মুস্খস্ত বিদ্যা বা এরকম কিছু মনে করেন তবে তা ভুল হবে।

অতএব এসইও শেখার মূলমন্ত্র হচ্ছে, এসইও সম্পর্কে সর্বদা আপডেটেড থাকা ও নিজের অভিজ্ঞতা বৃদ্ধি করে তা দ্বারা সময়ের সাথে সাথে এসইও সম্পর্কে অবগত থাকা।

কেবল তবেই আপনি এসইও জিনিষ টা সম্পর্কে শিখতে পারবেন।

কিভাবে এসইও করবেন?

এখন আপনার মাথায় প্রশ্ন আসতে পারে তবে আমি কিভাবে এসইও শিখতে পারি। সত্যি কথা বলতে এই প্রস্নের উত্তর দেওয়া অততা সহজ নয়। তবে আমি আপনাকে কিছু ধারনা দেওয়ার চেষ্টা করব কিভাবে এসিও করতে হয় তা সম্পর্কে।

এসইও করবার সময় সর্বটা মনে রাখতে হবে “অন পেজ এসইও, অফপেজ এসইওটেকনিক্যাল এসইও” ঠিক ভাবে করতে হবে।

চলুন এখন এসইও এর এই তিনটি বিষয় সম্পর্কে জেনে ফেলি।

অন পেজ এসইও কি?

অন পেজ এসইওর কাজ হচ্ছে, বিভিন্ন উপায় বা মাধ্যমে একটি ওয়েবপেজ বা আর্টিকেল গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে rank করিয়ে নেওয়ার জন্য অপ্টিমাইজেশন করে নেওয়া।

এই ক্ষেত্রে করা প্রতিটা অপ্টিমাইজেশন পদ্ধতি কেবল ব্লগ বা ওয়েবপেজের ভেতরেই সিমাবদ্ধ থাকে। ফলে সার্চ ইঞ্জিন গুলো আপনার ওয়েবপেজের ভেতরেই যে কনটেন্ট গুলো রয়েছে বা যে বিষয়ে তথ্য রয়েছে তা সম্পর্কে বুজতে পারে।

সহজ ভাবে বললে, সার্চ ইঞ্জিনে কোন আর্টিকেল বা ওয়েব সাইট rank করিয়ে নেওয়ার জন্য উক্ত আর্টিকেল কি বিষয় বা যে সম্পর্কে তথ্য রয়েছে তা সার্চ ইঞ্জিন কে সঠিক ভাবে বুঝানোর প্রক্রিয়াকে অনপেজ এসইও বলে।

অন পেজ এসইও করবার ক্ষেত্রে যে বিষয় গুলো মনে রাখতে হবে।

  • কিওয়ার্ড রিসার্চ
  • টাইটেল
  • হেডিং
  • সাব হেডিং
  • মেটা ডেসক্রিপশন
  • বডি কন্টেন্ট
  • ইন্টারনাল লিংকিং
  • এক্সটারনাল লিংকিং
  • ইউআরএল

মোটামুটি একটি ব্লগের অনপেজ এসইও করবার জন্য উল্লেখিত এই বিষয় গুলো সঠিক ভাবে লক্ষ রেখে এসইও করলে উক্ত ব্লগ বা আর্টিকেল সার্চ ইঞ্জিনে rank পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

অফ পেজ এসইও কি?

অফ পেজ এসইও বলতে বুঝায়, একটি ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজ সার্চ ইঞ্জিন গুলোর জন্য অপ্টিমাইজেশন করার এমন প্রক্রিয়া যা একটি সাইটের বাইরে করতে হয়।

যেমন,

  • সোশ্যাল শেয়ার
  • লিংক বিল্ডিং
  • প্রোফাইল তৈরি
  • ডিরেক্টরি সাবমিশন
  • ফোরাম ব্যকলিংক
  • ব্যাকলিংক তৈরি

টেকনিক্যালি দেখলে অফ পেজ এসইও অনপেজ এসইও এর তুলনায় খুব কঠিন কিছু নয়। যার জন্য মনে হতে পারে অফ পেজ এসইও এর কাজ ও হয়তবা খুব একটা নয়।

তবে আপনি জেনে রাখুন অনপেজ এসইও পাসাপাশি অফপেজ এসইও করা বা শিখে নেওয়াটাও অতান্ত গুরুত্বপূর্ণ।

টেকনিক্যাল এসইও কি?

টেকনিক্যাল এসইও বলতে বুঝায় হচ্ছে, একটি ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজের non-content element গুলোকে বুঝায়। যেমন ওয়েবসাইট থিম, প্লাগিন, ওয়েবসাইট ডিজাইন ইত্যাদি।

টেকনিক্যাল এসইও এর গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় রয়েছে যেমন,

  • সাইট স্পীড
  • মোবাইল ফ্রেন্ডিনেস
  • ইনডেক্সিং
  • ক্রলবিলিটি
  • সাইট ডিজাইন
  • স্ট্রাকচার্ড ডেটা
  • সিকিউরিটি

একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ গুগলের মত সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে rank করানোর জন্য শুধু অন পেজ এসইও বা অফপেজ এসইও করাটা জরুরি নয়।

সার্চ ইঞ্জিনের জন্য একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট সঠিক ভাবে অপ্টিমাইজেশন করে তোলার জন্য টেকনিক্যাল এসইও ভুমিকা অতান্ত বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

Conclusion

আমরা আশা করি এসইও কি, এবং এসইও কত প্রকার তা আমরা ভাল মত এক্সপ্লেন করতে পেরেছি। আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেল ভাল করে পড়ে থাকেন তবে আমরা মনে করি আপনি এসইও সম্পর্কে মোটামুটি একটা ভাল ধারনা পেয়েছেন।

আসলে এসইও জিনিষ টা এমন নয় যা একটা মাত্র আর্টিকেল লিখেই সব কিছু শিখিয়ে দেওয়া যাবে। তবে আমরা চেষ্টা করেছি যতটা সম্ভব সহজ করে এসইও সম্পর্কে একটা ভাল ধারনা আপনাকে দেওয়া যায় তততুকু করবার।

পরিশেষে একটা বিষয় মনে রাখবেন এসইও কখনই অনেক দ্রুততার সাথে শিখে নেওয়া বা বুঝে নেওয়া সম্ভব নয়। এসইও বিষয় টা শিখতে বা বুজতে সময়ের প্রয়োজন একই সাথে অভজ্ঞতার প্রয়োজন।

এবং এখনও যদি আপনার এসইও সম্পর্কে কোন প্রশ্ন বা কিছু জানার থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে আমাকে তা জানাবেন।

Hi, i'm Akash Golder, Author & founder of DotBangla. A blog that provides authentic information regarding technology, blogging, SEO, online earn money, how to guide & much more.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *