ওয়েবসাইটের জন্য সেরা থিম কিভাবে নির্বাচন করতে হয়

আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য কেমন থিম ব্যবহার করা উচিৎ? ওয়েল, আমি আমার নতুন ভাইদের উদ্দেশে একটা কথা বলতে চাই।

নতুন ভাইয়েরা অনেকেই আছেন যারা ওয়েবসাইট কে নতুন বউ এর মতো করে সাজিয়ে তুলতে চান। হ্যাঁ, ভাই আমি ঠিক বলছি অনেকেই এমন করে থাকে। আচ্ছা, আমি এমন কেন বলছি? ওয়েট আমি বিস্তারিত আর্টিকেল এ বর্ণনা করে বলছি।

প্রথমেই বলে রাখি, আপনি কি আপনার ওয়েবসাইট শুধু নাম মাত্রই তৈরি করছেন।

যদি আপনার উত্তর হ্যাঁ হয়ে থাকে, তাহলে ভাই আপনি যেমন ইচ্ছা থিম ব্যবহার করতে পারেন, এবং নতুন বউ এর মতো করে সাজিয়ে তুলতে পারেন, একটুও প্রবলেম নেই।

তবে আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইট টি নির্দিষ্ট কোন কাজের জন্য তৈরি করে থাকেন, অর্থাৎ আপনি ভবিষ্যতে আপনার ওয়েবসাইট দিয়ে কিছু করে নিতে চান।

আপনি আপনার কাজ নিয়ে সিরিয়াস হয়ে থাকেন; তবে অবশ্যই এই নতুন বউ,টউ এর মতো করে ওয়েবসাইট সাজানো থেকে বিরত থাকুন।

সাদামাটা সিম্পিল থিম

সোজা কথায়; একদম সিম্পিল লুকিং থিম, এমন থিম বেঁছে নিতে হবে যা দেখতেও সুন্দর হবে, এবং লাইট ওয়েট হবে।

আর সব সময় চেষ্টা করতে হবে আপনার ওয়েবসাইট যেন একদম দেখতে নতুন বউ এর মতো না লাগে। এতে করে আপনার কয়েকটি প্রবলেম হবে।

ওয়েবসাইট থিম নির্বাচন
ওয়েবসাইটের জন্য সেরা থিম

ওয়েবসাইট থিম র‍্যাঙ্কিং ফ্যাক্টর হতে পারে

থিম এর সাথে গুগল রেঙ্কিং এর সম্পর্ক কি? এটাই তো ভাই, দেখুন গুগল সব সময় সিম্পল এবং লাইট ওয়েট থিম পছন্দ করে।

আপনার থিম টি যদি হরেক রকম ডিজাইন দিয়ে ভর্তি থাকে, তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই আপনার ওয়েবসাইট অনেক স্লো লোডিং হবে।

আর গুগল কখনই স্লো সাইট রেঙ্ক করিয়ে দেয়না। অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইট এর কনটেন্ট কখনই গুগল এর প্রথম পেজ এ আসবে না, এটা আপনি নিঃসন্দেহে থাকতে পারেন।

একটি ভাল থিম এডসেন্স থেকে বেশি রেভিনিউ দিতে পারে

ভাই কি বলছেন এসব? ওয়েবসাইট অনেক ডিজাইন করলে বুঝি গুগল এডসেন্স পেতেও প্রবলেম হবে।

কই না তো, আগে তো এমন শুনি নি। ভাই আপনি না শুনে থাকলে এটা আমার বার্থটা কারন আর্টিকেল টা আমি আজ লিখছি।

যাই হোক টপিকে আসি, এখন যারা গুগল এডসেন্স এর সাথে কাজ করে তারা কম বেশি সবাই যেনে থাকবে গুগল এডসেন্স এখন প্রায়শও নতুন নতুন আপডেট নিয়ে আসছে।

এবং অনেক রুল ও তৈরি করে দিচ্ছে। আর এই সময়ে একটি গুগল এডসেন্স এর আপ্রুভাল পেতেও অনেক বেগ পেতে হচ্ছে।

আপনার গুগল এডসেন্স না পাওয়ার প্রধান কারন হতে পারে; আপনার সাইট খুব বেশি সাজানো।

হ্যাঁ, আপনি ঠিক পড়ছেন, গুগল এডসেন্স ও মোটেও পছন্দ করে না এতো সাজানো ওয়েবসাইট।

গুগল এডসেন্স বলে আপনি আপনার কনটেন্ট এর দিকে খেয়াল রাখুন, ভালো ভালো কনটেন্ট দিন, এবং সিম্পল এবং লাইট ওয়েট থিম ব্যবহার করতে।

অন্যথায় আপনার ওয়েবসাইট টি যদি সম্পূর্ণ রেডি ও হয়ে যায় গুগল এডসেন্স এর জন্য তারপরেও আপনাকে ফিরিয়ে দিতে পারে গুগল এডসেন্স এই একটি কারনের জন্য।

ওয়েবসাইটের জন্য কেমন থিম ব্যাবহার করা যেতে পারে

এখন আপনি আমাকে বলতে পারেন ভাই তাহলে কেমন থিম ব্যবহার করবো? উত্তরঃ সিম্পিল এবং লাইট ওয়েট থিম। এমন থিম যার পেজ সাইজ ৬০০/৭০০ কেবি মাঝে থাকবে, এবং দেখতে খুবই সিম্পিল হবে।

আচ্ছা আমি আমার ভাইদের উদ্দেশে কিছু থিম এর নাম বলে দিচ্ছি, যে সকল থিম পার্সোনালই আমার খুব পছন্দের।

ওয়ার্ডপ্রেসের ৮ টি ফ্রি থিমস

আপনি এসকল থিম ব্যবহার করতে পারেন, বা এই টাইপ এর থিম ব্যবহার করতে পারেন।

আপনি শুধু ধ্যান রাখবেন আপনার ওয়েবসাইট বেশি ডিজাইন করতে গিয়ে যেন সাইট স্লো না হয়ে যায়, এবং এমন থিম ব্যবহার করবেন যার পেজ সাইজ কম হবে।

বাজে ভাবে কোড করা বা ভারি থিম গুলো ব্যাবহার না করার পরামর্শ থাকবে।

প্রথমেই আপনি যদি পারেন টাকা দিয়ে কিনে পেইড থিম ব্যবহার করবেন। অন্যথায় ক্রাক করা থিম ডাউনলোড করে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

ক্রাক করা থিম ব্যবহার করলে যে কোন সময় আপনার সাধের ওয়েবসাইট টি হ্যাক হয়ে যেতে পারে।

আপনার বাজেট না থাকলে আপনার জন্য অনেক ফ্রী থিম রয়েছে, আপনি চাইলে ফ্রী থিম গুলি ব্যবহার করতে পারেন।

ফ্রী অনেক ভালো, ভালো থিম আছে, যার ভিতর আমার সব থেকে প্রিয় “Astra” এই থিম টি আপনি ফ্রীতেও পাবেন এবং পেইড ভার্সন ও পাবেন।

Hi, i'm Akash Golder, Author & founder of DotBangla. A blog that provides authentic information regarding technology, blogging, SEO, online earn money, how to guide & much more.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *